সুখবর, কাতারে স্থায়ী আবাসনের অনুমতি পাবেন বাংলাদেশিরাও!

সুখবর, বাংলাদেশি সহ সকল বিদেশীদেরকে স্থায়ী আবাসিক অনুমোদন দেয়ার ক্ষেত্রে অনেকটা অগ্রসর হয়েছে কাতার। দেশটির আইন প্রণেতাদের সিনিয়র একটি পরিষদ এ বিষয়ক খসড়া আইন অনুমোদন করেছে।

উপসাগরীয় অঞ্চলে চলমান সঙ্কটের মধ্যে এই প্রথম এমন ঘোষণা দেয়া হলো। এই প্রস্তাবটি এখন মন্ত্রীপরিষদে উঠবে। সেখান থেকে পাঠানো হবে কাতারের আমীর শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির কাছে। তিনি অনুমোদন দিলেই এটি আইনে পরিণত হবে।

এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যম থেকে বলা হয়েছে, সোমবার বিদেশীদের স্থায়ী আবাসিক অনুমোদন দেয়ার আইনের পক্ষে সম্মত হয়েছে দেশটির শুরা কাউন্সিল। এর ফলে যেসব বিদেশী কাতারে মূল্যবান অবদান রাখছেন তাদেরকে আবাসিক অনুমোদন দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

আবার কাতারি নারীদের মেয়েদেরকে যেসব বিদেশী বিয়ে করেছেন তারাও এ সুবিধার আওতায় আসবেন। কাতার নিউজ এজেন্সি রিপোর্টে বলেছে, স্থায়ী আবাসন সংক্রান্ত খসড়া আইন অনুমোদন করেছে শুরা কাউন্সিল।

তবে স্থায়ী আবাসিক সুবিধা পাওয়া ব্যক্তিরা দেশের ফ্রি শিক্ষা, স্বাস্থ্য সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না। তাদেরকে তাদের নিজস্ব সম্পত্তির ওপর অধিকার দেয়া হবে। তেলসমৃদ্ধ কাতারে এমন প্রস্তাবনা এই প্রথম।

উপসাগরীয় দেশগুলো যখন কাতারকে কূটনৈতিকভাবে বর্জন করে তার দু’মাস পরে গত আগস্টে এমন আইন করার কথা বলা হয়েছিল।

এ অঞ্চলের অন্য দেশগুলোর মতো কাতারও মূলত বিদেশী শ্রমিক নির্ভর। বর্তমানে সেখানে জনসংখ্যা ২৭ লাখ ১০ হাজার। এর মধ্যে শতকরা ৯০ ভাগই সেদেশের নাগরিক নন। এটা এক রেকর্ড। বহু সংখ্যক শ্রমিক কাতারে ২০২২ সালে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজনে সহায়তা করছেন।